লালপুর উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টাকা বিতরণ হওয়ার পরে কৌশলে হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

০৪ জুন,২০২০ ইং তারিখ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার সময় নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি মহোদয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় হতে বাস্তবায়নাধীন “বিশেষ এলাকার জন্য উন্নয়ন সহায়তা” শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরে লালপুর উপজেলার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা বৃত্তি বিতরণ করেন। পরবর্তীতে একই দিনে দুপুর ১.৩০ মিনিটের দিকে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে জানা যায়, গোপালপুর পৌরসভার বাহাদীপুর গ্রামের মহিলা কলেজের পিছনে বসবাস করা কিছু আদিবাসী শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নয়ন বিশ্বাস (আনুমানিক ৪০ বছর), পিতাঃ বিস্ট সরকার নামের এক লোক নিজেকে ‘সোনালি আদিবাসী সমিতি’-র সহ-সভাপতি দাবি করে প্রাপ্ত সকল অর্থ কৌশলে ছিনিয়ে নেয়। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন জমা হলে নয়ন সকলকে টাকা ফেরত দেওয়ার চেষ্টা করে। এমন পর্যায়ে গোপালপুর পৌর ছাত্রলীগের কিছু কর্মীদের সহায়তায় স্থানীয় লোকজন নয়নকে লালপুর উপজেলা প্রশাষকের কাছে ধরে নিয়ে যায়। সেখানে প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে সব কিছু শোনার পর উপজেলা প্রশাসক জনাব উম্মুল বানীন দ্যুতি নয়নকে বকাবকি করেন এবং বিষয়টি তার অফিস সহকারী মো. বজলু কে ডেকে নয়নের কাছ থেকে টাকা উদ্ধার করে শিক্ষার্থীদের ফিরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন। এরপর মো. বজলু তার অফিসে শিক্ষার্থীদের ডেকে তাদের প্রাপ্ত অর্থ ফেরত দেয়। সেখানে কথা-বার্তার সূত্রে জানা যায়, অফিস সহকারী মো. বজলু ও নয়ন বিশ্বাস পূর্বের পরিচিত। নয়ন বিশ্বাস লালপুর উপজেলার চং ধুপইল ইউনিয়নের বড় বাহাদুরপুর গ্রামের বাসিন্দা।       

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here