“ছাত্র ও শিক্ষিত যুব সমাজ কেন রাজনীতি বিমুখ”- শীর্ষক অনলাইন আড্ডায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে মুক্ত আলোচনায় নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) নির্বাচনী আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি।

লালপুর উপজেলা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন এর আয়োজনে বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট, ২০২০ ইং তারিখ সন্ধ্যা ৭ টাই লালপুর উপজেলার শিক্ষার্থীদের সাথে অনলাইনে একটি মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন বকুল এমপি। বর্তমানে সাধারণ ছাত্র ও শিক্ষিত যুব সমাজের একটা বড় অংশ রাজনীতি বিমুখ। কেন তারা রাজনীতি বিমুখ এবং এটার সমাধান নিয়ে আলোচনা করায় ছিল আড্ডার প্রধান বিষয়বস্তু। সেই সাথে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে সরাসরি প্রশ্নোত্তর পর্বেও অংশগ্রহণ করেন এমপি মহোদয়। অনলাইনে এই আড্ডায় উপস্থাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দেলোয়ার হোসেন দিহান এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাজহারুল ইসলাম রকি। আড্ডায় প্রধান ভূমিকায় থাকেন লালপুর-বাগাতিপাড়ার সাংসদ শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি এবং অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন গোপালপুর পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক উপল পাল সজল। এছাড়া এই আড্ডায় অংশ নেন দেশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীবৃন্দ।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উক্ত লাইভ আড্ডায় প্রথমেই এমপির উপস্থিতিতে নিজ নিজ মতামত প্রকাশ করেন। ছাত্র সমাজ কেন রাজনীতি বিমুখ, এমন প্রশ্নের জবাবে উপল পাল বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট কে দায়ী করেন। তাছাড়া দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে দীর্ঘদিন ছাত্র সংসদ নির্বাচন না হওয়াও ছাত্র রাজনীতিতে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করেন তিনি।

এমপি বকুল বলেন- ” সন্ত্রাসী, খুন জখমের মাধ্যমে ছাত্র রাজনীতির পরিবেশকে নষ্ট করা হয়েছে। রাজনীতিতে মুক্তভাবে মত প্রকাশে বাধার সৃষ্টি করা হয়েছে। সেজন্য বাবা-মা তার সন্তানকে নিয়ে আতঙ্কিত থাকে। তাছাড়া মাদকের ভয়াল থাবা আমাদের ভবিষ্যৎ মেধা গুলোকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এক শ্রেণির মানুষের দীর্ঘদিন ধরে যেনোতেনো প্রকারে ক্ষমতায় থাকার লালসায় বাধাগ্রস্ত হয়েছে স্বাভাবিক রাজনীতির ধারাবাহিকতা।” তিনি আরও বলেন- “জননেত্রী শেখ হাসিনা ছাত্র রাজনীতি ফিরিয়ে আনার জন্য দীর্ঘদিন পর আবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন চালু করেছেন। মাদক নির্মূল করার লক্ষ্যে তিনি বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন।”

প্রশ্নোত্তর পর্বেও শিক্ষার্থীরা এমপিকে সরাসরি বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করলে, তিনি তার যথাযথ যৌক্তিক উত্তর দেন এবং শিক্ষার্থীদের মতামত গ্রহণের পাশাপাশি যেকোন ভালো কাজে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

উল্লেখ্য, করোনার মহামারির কারণে ও ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মানের ধারাবাহিকতায় একজন সংসদ সদস্যকে নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের সাথে প্রথমবারের মত এই ধরনের অনলাইন ভিত্তিক মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে লালপুর উপজেলা ইউনিভার্সিটি স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন। তবে সাধারণ মানুষ ভবিষ্যতে নিয়মিত জন প্রতিনিধিদের সাথে সরাসরি এরকম কোন আলোচনায় অংশ নিতে আগ্রহী বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্তব্য করেন অনেকেই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here